ডোমেইন হচ্ছে কোন একটা ওয়েবসাইটের নাম। যেমন www.google.com এখানে www হচ্ছে World Wide Web এর পুর্নরূপ এবং ডোমেইন হচ্ছে google.com .আসুন আর একটু সহজ ভাবে বুঝে নেই। মনে করুন আপনি একটি ব্যবসা নতুন করে শুরু করতে চাচ্ছেন। আপনি তাহলে সর্বপ্রথম যে কাজটি করবেন সেটি হচ্ছে এই ব্যবসার জন্য একটি সঠিক এবং সুন্দর নাম নির্বাচন করা। এবং নাম নির্বাচন করা হয়ে গেলে এবার আপনি চাইবেন নামটা যেন আর কেউই ব্যবহার করতে না পারে এবং এজন্য আপনি এই নামে ব্যবসাটিকে ট্রেড লাইসেন্স করে নিলেন। তাহলে এখন এই নামটি আপনি আপনার ব্যবসার জন্য সঠিক ভাবে ব্যবহার করতে পারবেন।এবার এই পুরো বিষয়টিকেই অনলাইনে নিয়ে আসুন। আপনার বিজনেসটি যখন অনলাইনে হবে তখন আপনি একটি নামে ব্যবসাটিকে সকলের কাছে পরিচিত করতে চাইবেন, আর ঐ নামটিই হচ্ছে ডোমেইন (Domain)।

প্রথম বানিজ্যেক ডোমেইন

প্রথম বানিজ্যিক ডোমেন নাম Symbolics.com, ১৫ মার্চ ১৯৮৫ সালে প্রথম বাণিজ্যিক ভাবে ডট কম ডোমেন নাম ক্যাম্ব্রিজের কম্পিউটার ফার্ম সিম্বোলিক্স তাদের ওয়েব সাইট Symbolics.com এ ব্যবহার করে।ডোমেইনের গঠন অনুমোদিত অক্ষর।

দৈর্ঘ্যঃ

ডোমেন নাম দৈর্ঘ্য ৬৩ অক্ষরের মধ্যে হতে হবে।

অনুমোদিত অক্ষরঃ

বর্ণানুক্রমিক অক্ষর, a থেকে z, ছোট হাতের অক্ষর

সংখ্যাসূচক অক্ষর 0 থেকে 9 এর মধ্যে

ড্যাশ (-) ব্যবহার করা যাবে কিন্তু ডোমেন নাম অবশ্যই একটি আলফানিউমেরিক অক্ষর দিয়ে শুরু এবং শেষ হবে। প্রথম এবং শেষ অবস্থানে ড্যাশ অনুমোদিত নয়।সাধারণত ডোমেইনের একের অধিক অংশ থাকে। একটিতে নাম অন্যটি এক্সটেনশন। যেমন www.chayan.info এখানে www হোষ্ট এর নাম, chayan হল ডোমেইন নাম এবং .info হল ডোমেইন এক্সটেনশন। ওয়েবসাইটের ধরণ অনুযায়ী বিভিন্ন ধরনের এক্সটেনশ হয়ে থাকে। যেমনঃ

  • .com সাধারণত কোম্পানি ওয়েবসাইটের জন্য ব্যবহার করা হয়।
  • .net এক বা একাধিক নেটওয়ার্কের জন্য ব্যবহৃত হয়।
  • .org কোন অর্গানাইজেশন/সংগঠন এর ওয়েবসাইটের জন্য ব্যবহার করা হয়।
  • .info ব্যক্তিগত অথবা তথ্যভিক্তিক ওয়েবসাইটের জন্য ব্যবহৃত।
  • .me সাধারণত পোর্টফলিও ওয়েবসাইটের জন্য ব্যবহার করা হয়।

ডোমেইন এর ধরনঃ

ধরনের দিক থেকে বিবেচনা করলে ডোমেইন বিভিন্ন ধরনের হয়ে থাকে। যেমন TLD, gTLD, SLD, ccTLD ইত্যাদি

TLD

Top Level Domain, ইন্টারনেট ডোমেন নামকরণ সিস্টেমের সর্বোচ্চ স্তরের ডোমেন বিভাগ। এ ধরনের ডোমেইন গুলোই সচারচর আমরা বেশি দেখে থাকি। Top Level Domain বোঝার উপায় হলো এর এক্সট্রেইনশন গুলো .com, .net, .org, .me, .info হয়ে থাকে।

SLD

Second Level Domain, ডোমেন নামের একটি অংশ যা ডট(.) এর আগে আসে। যেমন: chayan.com, এখানে SLD হচ্ছে chayan

gTLD

Generic TOP Level Domains, একটি টপ লেভের ডোমেন এর শ্রেণী কিন্তু যেটি কোন দেশের সাথে যুক্ত নয়, যেমন: .com, .net, .org ইত্যাদি।

ccTLD

Country Code Top Level Domain, প্রতিটি দেশের ২টি অক্ষর ডেমেন এর শেষ অংশে যুক্ত হয়ে যে ডোমেইন নামটি গঠন করে তাকেই ccTLD বলে। যেমন বাংলাদেশের .bd পাকিস্তানের .pk আমেরিকার .us ইউনাইটেড কিংডমের .uk ইন্ডিয়ার .in

কিভাবে একটি সঠিক ডোমেইন নাম নির্বাচন করবেন

১. .com এক্সটেইনশনের ডোমেইনকে প্রধান্য দিন

ডোমেইন রেজি: এর জন্য বিভিন্ন ধরনের এক্সটেইনশন আছে। শুরুর দিকে মানুষ .com, .net, .org ডোমেইন নেমের সাথে পরিচিত ছিলো। কিন্তু সময়ের পরিবর্তনের সাথে সাথে বিভিন্ন এক্সটেইনশন এসেছে। এখন তো চাইলে নীশ স্পেসিফাই করেও এক্সটেইনশন নেয়া যায়। যেমন .pizza , .photographt, .travel .ninja ইত্যাদি।তবে একজন অনলাইন মার্কেটার হিসেবে আমি সবসময় সাজেস্ট করি .com ডোমেইন এক্সটেইনশন ব্যবহার করার জন্য। কারন .com এখন পর্যন্ত সবথেকে বহুল ব্যবহৃত ডোমেইন এক্সটেইনশন।এছাড়াও এটা মনে রাখাও সহজ। ধরা যাক একজন মানুষ টোকনোলজি সম্পর্কে খুব বেশি জ্ঞান রাখে না। তার কাছে যদি আপনি বলেন .ninja সে হয়তো কিছুই বুঝতে পারবে না। কিন্তু এই মানুষটাকেই যদি বলেন .com তাহলে সে ঠিক বুঝে নেবে এটা একটা ওয়েবসাইটের নাম।হয়তো ইদানিং আপনারা খেয়াল করে থাকবেন স্মার্টফোনের কীপ্যাডে .com নামে ডিফল্ট কী সেট করা থাকে। অর্থাৎ .com একটি গ্রহনযোগ্য ডোমেইন এক্সটেইনশন।

২. সহজে টাইপ করা যায় এবং সহজ নাম পছন্দ করুন

সবসময় এমন একটি ডোমেইন নেম খুঁজে বের করার চেষ্টা করুন যেটি টাইপ করা সহজ এবং উচ্চারণযোগ্য।

উপরের ডোমেইন নাম গুলোতে খেয়াল করুন। সাইটগুলো খুব সহজেই টাইপ করা যায় এবং প্রত্যেকটা সাইট ই সহজবোধ্য। তাই ডোমেইন নাম নির্বাচনের ক্ষেত্রে সবসময় অপ্রয়োজনীয় শব্দ এড়িয়ে চলুন। এমন কোন নাম পছন্দ করুন যেটা মানে খুব সহজেই বোঝা যায় এবং মনে রাখাও সহজ।

৩. সহজ এবং ছোট নাম নির্বাচন করুন

ডোমেইন যতোটা সম্ভব ছোট রাখার চেষ্টা করুন। আপনার ডোমেনের নাম জটিল এবং লিখতে সমস্যা হয় এ ধরনের শব্দ পরিহার করা উচিত। এক্ষেত্রে ভিজিটরের ভুল টাইপ বা বানান ভুল করার সম্ভবনা থাকে। তাই ছোট ও সহজে মনে রাখা যায় এমন ডোমেইন নেম নির্বাচন করুন। যদিও ছোটো ডোমেইন নেম খুঁজে পাওয়া মোটেই সহজ কাজ না তবে ভাল ফলাফলের জন্য ডোমেইন নেম সংক্ষিপ্ত রাখা জরুরী।ব্যাক্তিগত ভাবে আমি সর্বোচ্চ ৮-১০ অক্ষর ডোমেইন নাম রাখতে পরামর্শ দিব।

৪. কীওয়ার্ড দিয়ে ডোমেন না নেয়া

ওয়বেসাইট তৈরির আগে আমরা সবাই কীওয়ার্ড রিসার্চ করি। এক্ষেত্রে অনেক সময় আমরা মেইন কীওয়ার্ড টি ডোমেইন এর মধ্যে রাখি, যেটিকে বলা হয় EMD (Exact Match Domain). কিন্তু বর্তমানে Google EMD কে অতটা গুরুত্ব দেয়না আগের মত। এমনটি আপনার সাইটের কন্টেন্ট লো কোয়ালিটির হলে আপনাকে Google প্যানাল্টিও দিতে পারে।যেমন ধরুন এখন আপনি একটি ই-কমার্স সাইট করতে যাচ্ছেন। আপনার ব্যবসা শুরু করতে চান এবং আপনার পণ্য Organic Fruits হয়। আপনার ডোমেন নিলেন কীওয়ার্ড রিলেটেড।যেমনঃ organicfruits.com, organicfruitsStore.comতবে এখানে কিছু দ্বিমতও  আছে। কারন আমরা এখনও দেখি কিছু কিছু ক্ষেত্রে EMD কে প্রাধান্য দেয়া হয়, যদি আপনার কন্টেন্ট উন্নত মানের হয়।

৫. অবাঞ্চিত ক্যারেক্টার, হাইপেন ব্যবহার না করা

ডোমেইন নামের মধ্যে কোনো অবাঞ্চিত ক্যারেক্টার কিংবা সিম্বল ব্যবহার করা উচিত নয়। যাতে করে ডোমেইন নেম টাইপ করার সময় ভিজিটরের কোনো ধরনের প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে।উদাহরন স্বরুপ বলা যায় প্রথম আলোর কথা। আপনি একজন কে যদি বলেন প্রথম আলোর ওয়েবসাইট ভিজিট করার জন্য। যে কিনা প্রথম আলো সম্পর্কে কোনো ধারনা রাখে না সে সরাসরি prothomalo.com ভিজিট করবে এতে সে একটি ভুল এবং আন অথরাইজ ওয়েবসাইটে চলে যাবে । কারন আপনি তাকে বলেননি প্রথম আলোর অফিসিয়াল ওয়েবসাইট টি prothomalo.com নয় prothom-alo.com। তাই ডোমেইনে অপ্রয়োজনীয় ক্যারেক্টার হাইপেন কিংবা সংখ্যা ব্যবহার না করাই ভালো।

৬. ডোমেইন নিয়ে বিস্তারিত জেনে নিন

ডোমেইন নাম রেজি: করার আগেই নিশ্চিত হয়ে নিন যে আপনার নির্বাচিত নামটি ট্রেডমার্ক, কপিরাইটযুক্ত বা অন্য কোম্পানী দ্বারা ব্যবহৃত হচ্ছে না। কারন তা না হলে আপনাকে বড় ধরনের আইনি জটিলতার সম্মুখ্যীন হতে পারে।যেমন আপনি আপনার ডোমেইন নেমে Google, Facebook এই ধরনের ওয়ার্ড ব্যবহার করতে পারবেন না। কারন এগুলো ট্রেডমার্ক ওয়েবসাইট এবং এদের নাম কপিরাইট করা। তাই ডোমেইন নেম রেজি: করার আগেই আগেই এই ব্যাপার গুলো চেক করে নিন।ডোমেন কোন কোম্পানির কাছ থেকে কিনলে ভালো হবে ?এই ধরনের প্রশ্ন প্রায়ই আমি পেয়ে থাকি , আপনারা godaddy , namecheap , Bluehost , HostGator এই সব কোম্পানি গুলোর থেকে মাস্টারকার্ড দিয়ে কিনতে পারেন।

তবে এসব কোম্পানির কাছ থেকে আমাদের হোস্টিং ডোমেইন কিনতে মেইন যে, সমস্যাটি হয়ে থাকে তা হল , ইন্টারনেশনাল ভাবে ডলারে পেমেন্ট করা।

বাংলাদেশের অনেক কোম্পানী লোকাল কারেন্সিতে ডোমেইন এবং হোস্টিং কেনার সুযোগ দেয়। 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here