যথাযথ ভাবে ফাইভারের নিয়ম মেনে আপনার কাজের বর্ণনা  দিয়ে পোস্ট আকারে লিখে রাখাকে গিগ বলে। আপনি যে কাজ পারেন সেই কাজের বর্ণনা  লিখলেন। উদাহরণ স্বরূপ আপনি গ্রাফিক্স ডিজাইনার। আপনি লগো ডিজাইন পারেন। তাহলে আপনি লগো ডিজাইন নিয়ে কিছু কথা লিখলেন এবং আপনি কেমন ডিজাইন পারেন তার বর্ণনা  দিলেন নিজের কাজ সম্পকে ভাল ভাল  যা আপনার বেলায় সত্য সেগুলো লিখে রাখলেন। মোট কথা একজন কাজ দাতা বা বায়ার কেন আপনাকে কাজ দিবে তার প্রয়োজনীয়তা আপনি আপনার বর্ণনা  খুব সুন্দরভাবে উপস্থাপন করলেন। অনেকটা নিজের ঢোল নিজে পেটানোর মত। আর যদি আপনি এখানে আগে কাজ করে থাকেন তার কথা লিখলেন তবে নতুন অবস্থায়তো আগের কাজের বর্ণনা তো  দেয়া সম্ভব নয় । 

 তাই আপনা যতটুকু কাজ জানেন তার বর্ণনা  দেয়াই শ্রেয়। এখানে আপনার জানা কাজ যেগুলো আপনি ডিজাইন করেছে তা আপলোড দেয়ার অপশনে দিয়ে দিতে হবে। আপনির গিগটি যদি হয় লগো ডিজাইন নিয়ে তাহলে আপনার ডিজাইনকৃত লগো সংযুক্ত করতে পারবেন। যা বায়ার দেখে আপনার কাজ বর্ণনা  সম্পর্কের ভাল ধারণা পায়া সেরকম ইউনিক ডিজাইন দিতে পারেন। নতুন অবস্থা একজন ফ্রিল্যান্সার বা সেলার (ফাইভারে ফ্রিল্যান্সারদের সেলার বলে থাকে) ৭টি গিগ তৈরি করতে পারবে। সাত রকমের কাজের বর্ণনা দিয়ে ৭টি গিগ তৈরি করতে পারবেন। পুরাতনরা ২১টি গিগ পর্যন্ত  তৈরি করতে পারে। আপনি কতগুলো কাজ  ভালভাবে সম্পন্ন করেছেন তার উপর লেভেল দেয়া হয়ে থাকে।অন্যান্য মার্কেটপ্লেসে যেমন আপনাকে কাজের জন্য বিড করতে হয় এবং যথেষ্ট প্রতিযোগিতা করতে হয়।।

প্রতিবার কভার লেটার লেখতে হয়। প্রয়োজনীয় ফাইল আপলোড দিতে হয়। তারপর ক্লায়েন্টের ইন্টাভিউর জন্য বসে থাকতে হয়। ফাইবারে তেমনটা নেই। এখানে বায়ার আপনার গিগ ডিসক্রিপশন পড়ে তার যদি আপনার গিগ বা সারভিসটি পছন্দ হয় তাহলে সে অর্ডার করবে বা কিনবে। সেখানে সে তার রিকোয়ারমেন্ট অনুযায়ী ম্যাসেজ দিবে সেই অনুযায়ী আপনাকে বায়ারের কাজটি করে দিতে হবে। তবে বায়ার আপনার গিগের বাইরে কাজ চাইবে না। 

আপনি গিগে আপনার কাজে যে পরিধি উল্লেখ করবেন বায়ার তার মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকবে। উদাহরণ হিসাবে বলা যায় যে- আপনি ৫ ডলারে একটি লগো ডিজাইন করে দিবেন, সেখানে বায়ার বা ক্লায়েন্ট আপনাকে ২টি লগো চাইতে পারবে না। যদি চায় সেটি আপনি অতিরিক্ত টাকা বা ডলার চার্জ  করতে পারবেন। সেটিকে বলে কাস্টম অর্ডার । কাস্টম অর্ডারের মাধ্যমে আপনি ৫ ডলারের একটি কাজকে প্রয়োজন মত বাড়িয়ে নিতে পারবেন বায়ারের সাথে কথোপকথনের মাধ্যেমে।প্রথমে ফাইবার মার্কেট প্লেস সম্পর্কে ভাল ভাবে ধারণা নিতে হবে। তাদের নীতিমালা পড়ে ভালভাবে বুঝে কাজ করলে তেমন অসুবিধা হয় না। নিয়মঅনুযায়ী একজন ব্যক্তি একটি একাউন্ট তৈরি করতে পারবে। এবং সবসময় উক্ত একাউন্ট একটি ল্যাপটপ থেকে লগিন করতে হবে। 

একাধিক কম্পিউটার থেকে একটি একাউন্ট চালানো যাবে যদি ঐ ডিভাইসগুলো থেকে আর কোন একাউন্ট তৈরি করা না হয়ে থাকে। মোটকথা একটি একাউন্ট এক বা একাধিক কম্পিউটার থেকে লগিন করা যাবে তবে এক কম্পিউটার থেকে একাধিক একাউন্ট লগিন করা যাবে না। এটি ফাইভারসহ সকল ফ্রিল্যান্সিং সাইটগলোর নিয়ম। কোন রকম ডুপ্লিকেসি বা স্প্যামিং করলে একাউন্ট সাময়িক থেকে চিরতরে বন্ধ হয়ে যাবে। যেকোন ফ্রিল্যান্সিং সাইট বা জব মারকেট সম্পর্কে ভালাবে জানুন তার পর প্রোপাইল তৈরি করুন এবং কাজ করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here