প্রত্যেকটি বায়ার চাই, তার কাজটি দক্ষ ওয়ার্কার দিয়ে করাতে। এজন্য যারা ফাইবারে নতুন অ্যাকাউন্ট খুলেন তাদের জন্য অর্ডার পাওয়া খুব দুষ্কর হয়ে পড়ে। অনেকেই মনে করেন, ফাইবারে প্রথম অর্ডার পাওয়ার থেকে সাত সমুদ্র তেরো নদী পাড়ি দিয়ে রাজকন্যাকে💃 উঠিয়ে আনা আরও সহজ। এসব কথা ভেবে চুল টানতে টানতে অনেকের মাথার মাথার ছাদ👨‍🦲 এখন প্রায় ফাঁকা।অনেকেই ৩-৪ মাস কাজ করেও একটি অর্ডার আনতে পারেননি। কিন্তু তার মানে কি আপনার হাল ছেড়ে দেওয়া উচিত?🤔এরকম ভাবা একদমই বোকামি ছাড়া কিছুইনা।এখন কাজের কথায় আসা যাক।

আপনি ভাবছেন যে কীভাবে ফাইবারে ভালো অর্ডার পাওয়া যাবে???

আসুন এখন ফাইবারে ভালো অর্ডার না পাওয়ার পিছনের কয়েকটি সমস্যা নিয়ে আলোচনা করা যাক, যেসব বিষয় গুলো একজন সেলারের অবশ্যই মাথায় রাখা উচিত:১। ফাইবার প্রোফাইল পিকচার:

অনেক সময় আমরা এমন ধরনের প্রোফাইল পিকচার ইউজ করি যা দেখে বায়ারকে পাঁচ মিনিট ধরে ভাবতে হয় এই ফাইবার একাউন্টের মালিক মানুষ নাকি জড় পদার্থ।🧐 উল্টা হয়ে, চিৎ হয়ে, ভুট হয়ে, মুখ ঘুরিয়ে বেঁকিয়ে ভেটকি দিয়ে এমনভাবে ছবি দেই যা দেখ বায়ার নিজেই অজ্ঞান হয়ে পড়েন।😇🙃 আবার অনেকেই আম, জাম, কাঁঠাল, কলা, লিচু এর ছবি দিয়ে রাখেন। আপনি যদি ফাইবার থেকে কাজ পেতে চান তাহলে আপনার এমন একটি প্রোফাইল পিকচার দরকার যা বায়ার কাছে বিশ্বাস যোগ্য বলে মনে হবে। ছবিটি অবশ্যই পরিষ্কার এবং হাসিমুখের থাকতে হবে।২। আপনার প্রোফাইল ডিসক্রিপশন:

আপনি বিশ্বাস করেন আর নাই করেন আপনার প্রোফাইল ডিসক্রিপশন খুবই গুরুত্বপূর্ণ। বায়ার বেশিরভাগ সময় এটি পরীক্ষা করে দেখবে – যদি তাদের দৃঢ় বিশ্বাসের প্রয়োজন হয়। এই ডিসক্রিপশন এ আপনার সম্পর্কে এবং কি ধরনের কাজ করেন এটির সংক্ষিপ্ত এবং গোছালো বিবরণ দিবেন এবং আপনি কতটা বন্ধুসুলভ তা ডিসক্রিপশন এ উল্লেখ করবেন।৩। গিগ ইমেজ:

গিগ ইমেজ সুন্দর না হওয়ার কারণে বেশিরভাগ সময়ই অর্ডার পাওয়া যায় না। বায়ার আপনার গিগ একটু ঘাটাঘাটি করে বের হয়ে আপনার পাশের বাসার ফ্রিল্যান্সার ভাইকে অর্ডার দিয়ে আসেন। এ সব দেখে আপনার হাই হতাশ😑 করা ছাড়া আর কিছুই করার থাকেনা। এ জন্য গিগ ইমেজ গুলি অবশ্যই আই-ক্যাচিং এবং অ্যটাক্টটিভ হতে হবে। কারণ অনেক সময় বায়ার গিগ ইমেজ দেখেই গিগ ওপেন করেন। এবং গিগ ইমেজ দেখে যাতে বায়ার সহজে বুঝতে পারে আপনি কোন ধরনের সার্ভিস প্রোভাইড করবেন।৪। চমৎকার গিগ বিবরণ:

আপনি যাই করুন না কেন, আপনার গিগের বর্ণনা নিরপেক্ষ এবং স্বচ্ছ করার চেষ্টা করুন। প্রথম দুই লাইনে এমন কিছু লিখুন যা দেখে বায়ার বুঝতে পারে আপনার কাজের কোয়ালিটি কেমন এবং আপনি বায়ারকে কেমন কাজ প্রোভাইড করবেন। গিগ এর ভিতরে আপনার চৌদ্দগোষ্ঠীর👨‍👩‍👧‍👦 কথা লেখার দরকার নাই, দরকারি কথা গুলো লিখুন, সাজিয়ে লিখুন।যাইহোক, একটি আকর্ষণীয় গিগ বিবরণ তৈরির সর্বোত্তম উপায় হ’ল ফাইভারের সেরা সেলারদের অনুসরণ করা। আপনি কী করবেন তা সুনির্দিষ্টভাবে ব্যাখ্যা করুন এবং কোনো ভাবেই অস্পষ্ট বা অবিশ্বাসযোগ্য না করার চেষ্টা করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here