Categories
ডোমেইন-হোষ্টিং

ডোমেন নাম খুঁজে না পেলে কি করবেন (domain name)

ওয়েবসাইটের জন্য নাম খুঁজে পাইনা। নাম পেলে (ডট কম) ডোমেইন পাইনা। আমরা প্রায় সবাই কমবেশি এই সমস্যার সম্মুখীন হই।

সমস্যায় পড়ে অনেকেই নামের সাথে বিডি লাগিয়ে দেই। আবার কেউ ডট এক্সওয়াইজেড/ ডট শপ ইত্যাদি ডোমেইন জুড়ে দেই। নতুবা নাম ছুড়ে ফেলে হতাশ হয়ে যাই এবং নতুন নাম খুঁজতে খুঁজতে ব্যবসায় করার বয়স পার করে ফেলি।

সমধানের আগে কয়েকটা উদাহারণ দেই যাদের কোম্পানির নামের এর ‘ডট কম’ ডোমেইন নিজেদের হাতে নেই। যেমন- ই-ভ্যালি, শপআপ, ই-কুরিয়ার, পেপারফ্লাই, নগদ, স্টারটেক, রবি, টেলিটক, রেপ্টো এদের সবার ডট কম ডোমেইনই আগে থেকে বুকড। অর্থাৎ অন্যরা ব্যবহার করছে। তাই বলে কি তাদের ব্যবসায় বন্ধ? ‘ডট কম ডট বিডি’ দিয়ে তো দিব্বি কোটি কোটি টাকার ব্যবসায় করছে ‘ডট কম’ ডোমেইন ছাড়াই।

আগে থেকে ব্যবহার করছে এমন বা প্রিমিয়াম করে রাখা ডোমেইনও পাওয়া যায়। সেক্ষেত্রে বড় অঙ্কের টাকার অফার করতে হয়। প্রায় সব ব্যক্তি/কোম্পানিই তাদের নামের বুকড ‘ডট কম’ ডোমেইন কেনার জন্য চেষ্টা করে কিন্তু তাতেও কাজ না হলে পরে অন্য দিকে ঝুঁকতে হয়। সেক্ষেত্রে তাদের সবার পছন্দই ‘ডট কম ডট বিডি’।

কেননা, ‘ডট কম ডট বিডি’ তে কান্ট্রি ডোমেইন দ্বারা ব্যবসায়ের সেবার পরিধি প্রকাশ পায়। গুগল সার্চ রেজাল্টেও ভালো সুবিধা পাওয়া যায়। প্রিমিয়াম একটা ভাব থাকে মনে হয় যেন সরকার কতৃক অনুমোদিত, বিশ্বস্ত, হাহা…। আরেকটা সুবিধা হলো কোম্পানির মূল নামটা কিন্তু ঠিকই থাকে। কোন উপসর্গ অনুসর্গ যুক্ত করার প্রয়োজন পড়ে না।

সেজন্য ডট কমের পরেই ডট কম ডট বিডি, (প্রয়োজন মাফিক) ডট নেট, ডট এক্সওয়াইজেড এসব কমনগুলোকে অগ্রাধিকার দেয়া প্রয়োজন। অনেকে আছে যারা জানেইনা ডট কম/নেট/ওআরজি ছাড়া ডোমেইন হয়। তাদের কাছে ডট শপ, ডট কো নিতান্তই অন্যরকম লাগবে।

তবে হ্যাঁ, যদি একই দেশে একই নামের ডট কম কেউ ব্যবহার করে তবে সেই নামের ‘ডট কম ডট বিডি’ বা অন্য কোন টপ লেভেল ডোনেইন ব্যবহার না করাই শ্রেয়। উপরের উদাহারণ গুলো হুইজ ইনফো চেক করলে দেখবেন ‘ডট কম’ওয়ালারে সব বাইরের দেশের।

Categories
ডোমেইন-হোষ্টিং

4L, 5L, 6L or two words combination domain

ডোমেইন কেনার সময় আমাদের সবার মধ্যে একটা প্রবণতা থাকে মিনিমাম 4L, 5L, 6L two words Domain । 4L ডোমেইন অবশ্য হ্যান্ড রেজিস্ট্রেশনের জন্য খালি নেই তবে অন্যগুলো কিনতে পারেন কিন্তু আপনাকে অবশ্যই ভেবেচিন্তে দেখতে হবে সেটা আসলে কি মিন করে, কেন আপনার ডোমেইনটি মানুষ কিনবে। ব্যাপারটা এমন না যে আজকে কিনবেন কালকে বিক্রি করে দিবেন। অনেক সময় ব্যাপকহারে মার্কেটিং করেও বিক্রি করা যায় না। সুতরাং তীর্থের কাকের মত বসে থাকতে হবে অথবা আপনি যদি যে কোন একটি বিষয়ে/নিসে পারদর্শী হন তাহলে এই রিলেটেড ডোমেইন আপনার জন্য ভালো হয়।। যেমন:


✓ 5L – 6L ডিকশনারি ওয়ার্ড একদম পাওয়া যায় না বললেই হয়, সেই ক্ষেত্রে দুটি শব্দের কম্বিনেশন হলে নিতে পারেন।। যেমন: ok+alt, okalt , আবার Tor+Let,( Torlet), Reb+Tin, (Rebtin), Pic+phy, (picture photography), Spa+Lit, (spalit), pas+out-(pasout)


✓ Two words: বর্তমানে ১ ওয়ার্ডের ডোমেইন পাওয়া যায় না।। সুতরাং ওয়ার্ডের ডোমেনে নিতে হবে।। এখানে প্রথম ওয়ার্ডের সাথে শেষের ওয়ার্ডের অর্থগত মিল/সমন্বয় থাকতে হবে। যেমন: service+area, my+phone ইত্যাদি।


✓ আবার মুসলিমস যেকোনো পপুলার নেম অথবা বিখ্যাত কোন স্থানের নাম, পর্যটন কেন্দ্রের নাম, বিখ্যাত ব্যক্তির নাম, সুন্দর কোন ব্র্যান্ডের নাম বুঝা যায় এমন, যে কোন ভাষার শব্দ।। যেমন: Alizaa (মুসলিম নাম), GyRide (Guyana+ride), Fav+hat(favourite hat), ব্র্যান্ডেবল নাম (niqee, sebeq, ramow, xonev, neeshy) , b2bi=acronyms (বিজনেস টু বিজনেস ইন্টিগ্রেশন). a4b(Action for business),, acronyms।


ভুলত্রুটি হলে মার্জনীয়।। দ্বিমত থাকলে অবশ্যই কমেন্টে জানাবেন পারলে শুধরে নিব।। সবাই ভাল থাকবেন।

Categories
ডোমেইন-হোষ্টিং

ডোমেইন নেম কেনা বেচার করার কিছু টিপস।

ব্যবসায় সফল হতে হলে যেমন অনেক টিপস এবং ট্রিকস অনুসরণ করতে হয়, তেমনি ডোমেইন কেনা বেচা করার জন্যেও বেশ কিছু নিয়ম অনুসরণ করতে হয়। নিচে এরকম কিছু টিপস নিয়ে আলোচনা করা হল:

টার্গেট নির্ধারণ করুন: আপনি কাদের নিয়ে কাজ করতে যাচ্ছেন। অর্থাৎ ডোমেইন নেম কি ভিত্তিক হবে। আপনি টার্গেট নিতে পারেন স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়, ই-কমার্স, কোম্পানি, কারখানা, মানুষের নাম, সংগঠন ইত্যাদি। এখন এক্ষেত্রে অবস্থা বুঝে আপনাকে দাম দিতে হবে। অনেকে আছে পছন্দ হওয়া স্বত্বেও দাম বেশী হলে সে অন্য নামে ডোমেইন কিনে নিতে পারে। তাই এমন কিছুকে টার্গেট করুন যারা আপনার ডোমেইন কিনতে বাধ্য।

মেয়াদ উত্তীর্ণ ডোমেইন কিনুন: অনেক ওয়েবসাইট মালিক আছে যাদের ডোমেইনের মেয়াদ শেষ হয়ে যায় কিন্তু ডোমেইন রিনিউ করে না কিংবা মনে থাকে না। সেই সব ডোমেইন কিনে নিতে পারলে আপনি অনেক বেশী লাভবান হবেন। কেননা এদের গুগল র‍্যাঙ্ক বেশী হওয়ায় মানুষ কিনতে আগ্রহী হয় বেশী।
মার্কেট রিসার্চ করুন: নিয়মিত মার্কেট রিসার্চ করুন। মানুষ কোন ধরণের ডোমেইন বেশী কিনছে সেই দিকে খেয়াল রাখুন।

সঠিক কি-ওয়ার্ডে ডোমেইন নির্বাচন করুন: সঠিক কি-ওয়ার্ড বলতে যেমন একজন গাড়ি বিক্রির সাইট তৈরি করতে চাইলে গাড়ি সম্পর্কিত কি-ওয়ার্ডে বেশী প্রাধান্য দেয়া। এছাড়া সঠিক কি-ওয়ার্ড এসইও র‍্যাঙ্কের জন্য জরুরি

Categories
ডোমেইন-হোষ্টিং

http ও https-এর কাজ এবং পার্থক্য কী?

http (hyper text transfer protocol) আর https (hyper text transfer protocol secure) এর পার্থক্য বুঝতে গেলে আপনাকে আগে end to end এনক্রিপশন কি তা বুঝতে হবে, আমি আপাতত সংক্ষেপে তুলে ধরলাম-


ধরুন আপনার মা আপনাকে বক্সভর্তি কিছু মালামাল পাঠাবে, যার হাতে পাঠাবে সে যাতে বক্স না খুলতে পারে সেজন্য আপনার মায়ের হাতে ৩ টা উপায় আছে-


তালা মেরে দেয়া (আপনি চাবি পাবেন কোথায়?)তালা মেরে চাবি দিয়ে দেয়া (যে কেউ চাবি দিয়ে খুলে ফেলতে পারবে)চাবি অন্য লোকের মাধ্যমে পাঠানো (ঐ লোক যে সৎ তার কোন গ্যারান্টি নেই)দেখা যাচ্ছে কোনটাই ইফিশিয়েন্ট নয়, তবে অন্যভাবে চিন্তা করুন-


আপনি একটি খোলা তালা আপনার মা কে পাঠালেনআপনার মা বক্সে ঐ তালাটা মেরে দিলো, চাবি আপনার কাছেই আছে, কেউ দেখেনি, চুরি বা কপি করার উপায়ও নেই।end to end এনক্রিপশনও এরকম, আপনি আপনার ডাটা এনক্রিপ্ট করার জন্য পাবলিক কি (খোলা তালা) ডিস্ট্রিবিউট করবেন। ঐ কি দিয়ে এনক্রিপ্ট করা ফাইল কেবলমাত্র আপনার কাছে থাকা গোপন কি (চাবি) দিয়ে ডিক্রিপ্ট করা যাবে।


http কানেকশন ব্যাবহার করে আপনি আপনার বন্ধুকে “কেমন আছো?” এই বার্তাটি পাঠালে এটি কমপ্রেসড্ প্লেইন টেক্সট হিসেবে প্রথমে আপনার রাউটার বা ল্যান কানেকশনের মাধ্যমে ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার এর কাছে যাবে, সেখান থেকে সংক্ষিপ্ততম মাধ্যমে আপনার বন্ধুর ডিভাইসে ট্রান্সফার হবে। মাঝপথে এই যে “ডাটা ট্রাভেল” চলছে এখানে যে কেউই ইচ্ছা করলে সিম্পল কিছু টুল ইউজ করে আপনার প্রেরণকৃত ডাটা লুফে নিতে পারবে।

https এ আপনার আর সার্ভারে কানেকশন স্টাবলিশ হওয়ার সাথে সাথে SSL সার্টিফিকেট এক্সচেঞ্জ হয়, এই সার্টিফিকেটে আপনার এবং সার্ভারের “পাবলিক কি” দেয়া থাকে। আপনি যা পাঠাবেন তা সার্ভারের পাবলিক কি দিয়ে এনক্রিপ্টেড হয়ে যাবে, সার্ভার যা ফেরত পাঠাবে তা আপনার পাবলিক কি দিয়ে এনক্রিপ্টেড হয়ে যাবে। মাঝপথে যারা আপনার ডাটা লুফে নিবে তারা “কেমন আছো?”-র পরিবর্তে এমন কিছু দেখবে—ad7ff25404d7aef6292212c7329bb9fae37ebeedabeba6190337b43571b84912

Categories
ডোমেইন-হোষ্টিং

ডোমেইন নাম কি চেঞ্জ করা যাবে ?

আপনি কোন ডোমেইন নেম রেজিস্ট্রেশন করার পর সেই ডোমেইনটির নাম আপনি কখনোই আর পরিবর্তন করতে পারবেন না। আপনি চাইলে নতুন করে অন্য নামে আরেকটি ডোমেইন রেজিস্ট্রেশন করে বা অন্য নামে একটি ডোমেইন কিনে আপনার ব্যবসার ওয়েবসাইটের জন্য ব্যবহার করতে পারেন।


তবে, হ্যাঁ রেজিস্ট্রেশন করার পর যদি দেখেন ডোমেইনের বানানটি ভুল হয়েছে। তাহলে, সেক্ষেত্রে ডোমেইনটি ডিলিট করে টাকা ব্যাক নিতে পারেন। তবে তার জন্য নির্দিষ্ট সময় রয়েছে।


রেজিস্টার ভেদে ডোমেইন ফেরত দেওয়ার সময়সীমা ভিন্ন। গোড্যাডী ৪৮ ঘন্টার সময় দেয় ডোমেইন দেরত দিয়ে টাকা রিফান্ড করে আবার কেনার। নেমচিপ সাধারণত ৭২ ঘন্টার সময়সীমা বেধে দেয় যদি আপনি কোন সদ্য রেজিস্ট্রেশন করা ডোমেইন ফেরত দিতে চান।এপিক ৫ দিন পর্যন্ত সময় দেয় আপনার নতুন রেজিস্ট্রেশন করা ডোমেইন ফেরত দিয়ে আবার অন্য একটা কিনতে।আরও অনেক রেজিস্টার ডোমেইন রিফান্ড করে।


নোটঃ
* ডোমেইন ফেরত দেয়ার ক্ষেত্রে শুধুমাত্র ICANN চার্জ কেটে রাখা হয় সর্বোচ্চ 0.50$ বা 1$ ।
* শুধুমাত্র gTLDs ক্ষেত্রে প্রযোজ্য।

Categories
ডোমেইন-হোষ্টিং

কিভাবে ডোমেইন নাম সিলেক্ট করবেন?

ডোমেইন নেবার পূর্বে একটি নাম নির্বাচন করুন যেমন: allylook.com । মনে রাখবেন এই নামটি যদি কেউ গ্রহন করে থাকে তাহলে আপনাকে অন্য নাম সিলেক্ট করতে হবে। এখন হয়ত অনেকের প্রশ্ন থাকতে পারে allylook.com রেজি: হয়ে গেছে কিন্তু allylook.net খালি আছে তাহলে ঐ নামটি নিব।

হ্যা এমনটি নেওয়া যাবে। তবে ভিজিটরকে কতটুকু মন জুগাতে পারবেন/সাইট পপুলার করতে পারবেন সেটি আপনার দক্ষতা নির্ভর করবে। তার কারন হল- পৃথিবীর প্রায় ৮০% লোক ডোমেইন নির্বাচন করতে গিয়ে .com কে সিলেক্ট করে, পরবর্তীতে সাইট জনপ্রিয় হলে একই নাম রেখে অন্য টি.এল.ডি নাম দেন যেমন: .com, .net, .org ইত্যাদি।

সুতরাং মনে করি allylook.com একটি সাইট রয়েছে। আপনি প্রতিযোগী হিসাবে allylook.net সাইট চালু করলে ভাল ভিজিটর আসবে না। তার কারন: allylook.com হিসাবে ভিজিটর বেশী চেনে, সাইট সার্চ দিলে প্রথমেই উক্ত সাইটটি আসবে। সুতরাং SEO & Google Search অপশনে আপনার সাইটকে দাড় করাতে কিছুটা ভোগান্তী পোহাতে পারে। সুতরাং যে নামটি পূর্বে রেজি: হয়ে গেছে তার ধারের কাছে না ঘেষাটাই শ্রেয়!

যেমন: একই সূত্রানুসারে বাংলাদেশের জনপ্রিয় ব্লগ গুলোর নাম অনুযায়ী techtunes.co ==> techtunes24.com.bd, pchelplinebd==>pchelplinebd24 কিংবা tunerpage ==> tunerpage.org/tunerpage24 না রাখাটাই শ্রেয়!

তবে হ্যা আপনার .com সাইটি যদি প্রচার পাই। তাহলে আপনি টি.এল.ডি নাম: .com, .net, .org নামে পরবর্তী সাইট রেজি: করতে পারেন। পৃথিবীর অনেক খ্যাতনামা সাইট দেখবেন যেখানে ১ম সাইটটি প্রচার/গ্রাহক সংখ্যা বৃদ্দি পাবার পর একই নাম ঠিক রেখে পরবর্তী টি.এল.ডি নামে সাইট ওপেন করা হয়েছে। যেমন আমার দেশের একটি বাংলা ব্লগ সাইট হচ্ছে:http://www.somewhereinblog.com & http://www.somewhereinblog.net

কোন ডোমেইন নাম রেজি: করতে পরীক্ষা করে নিন সেটি খালি আছে কিনা! এই জন্য দেশী কিংবা বিদেশী যে কোন ডোমেইন প্রভাইডার সাইটে গিয়ে Domain Cheek এ- কাংখিত ডোমেইনটি লিখে সার্চ দিন। যদি Available Here দেখায় তাহলে রেজি: করতে পারবেন, অন্যথায় না। যেমন: http://www.who.is সাইটে যাই > লিখে সার্চ করুন। দেখুন সব টি.এল.ডি খালি আছে কিনা। .com, .net, .org Available দেখালে ধরে নিবেন সেই নামে কোন কোম্পানি নাই। থাকলেও আপনি শুরু করতে চাইলে উক্ত নামে ডোমেইন রেজি: করতে পারবেন এবং রেজি: করার পর এখানেও (who.is) চেকিং করতে পারবেন ডোমেইনটি আপনার নামে রেজি: হয়েছে কিনা।

সম্মানিত বন্ধুগণ!! ডোমেইন সম্পর্কে লিখতে গিয়ে বেশ বড়সড় একটি পোস্ট হয়ে গেল। মূলত যারা ডোমেইন নিয়ে নানান সমস্যা মধ্যে ছিলেন, আশা করি এই পোস্টের মাধ্যমে কিছুটা হলেও উপকৃত হবেন। অপরিদকে পোস্ট লিখতে গিয়ে ত্রুটি-বিচ্যুতি থাকলে তাহা ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখার আহবাণ করছি।

Categories
ডোমেইন-হোষ্টিং

ডোমেইন বাই সেল করার জন্য কিছু টিপস !

ব্যবসায় সফল হতে হলে যেমন অনেক টিপস এবং ট্রিকস অনুসরণ করতে হয়, তেমনি ডোমেইন বাইসেল করার জন্যেও বেশ কিছু নিয়ম অনুসরণ করতে হয়। নিচে এরকম কিছু টিপস নিয়ে আলোচনা করা হল:

টার্গেট নির্ধারণ করুন: আপনি কাদের নিয়ে কাজ করতে যাচ্ছেন। অর্থাৎ ডোমেইন নেম কি ভিত্তিক হবে। আপনি টার্গেট নিতে পারেন স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়, ই-কমার্স, কোম্পানি, কারখানা, মানুষের নাম, সংগঠন ইত্যাদি। এখন এক্ষেত্রে অবস্থা বুঝে আপনাকে দাম দিতে হবে। অনেকে আছে পছন্দ হওয়া স্বত্বেও দাম বেশী হলে সে অন্য নামে ডোমেইন কিনে নিতে পারে। তাই এমন কিছুকে টার্গেট করুন যারা আপনার ডোমেইন কিনতে বাধ্য।

মেয়াদ উত্তীর্ণ ডোমেইন কিনুন: অনেক ওয়েবসাইট মালিক আছে যাদের ডোমেইনের মেয়াদ শেষ হয়ে যায় কিন্তু ডোমেইন রিনিউ করে না কিংবা মনে থাকে না। সেই সব ডোমেইন কিনে নিতে পারলে আপনি অনেক বেশী লাভবান হবেন। কেননা এদের গুগল র‍্যাঙ্ক বেশী হওয়ায় মানুষ কিনতে আগ্রহী হয় বেশী।

মার্কেট রিসার্চ করুন: নিয়মিত মার্কেট রিসার্চ করুন। মানুষ কোন ধরণের ডোমেইন বেশী কিনছে সেই দিকে খেয়াল রাখুন।

সঠিক কি-ওয়ার্ডে ডোমেইন নির্বাচন করুন: সঠিক কি-ওয়ার্ড বলতে যেমন একজন ডোমেইন হোস্টিং বিক্রির সাইট তৈরি করতে চাইলে ডোমেইন হোস্টিং কি-ওয়ার্ডে বেশী প্রাধান্য দেয়া। এছাড়া সঠিক কি-ওয়ার্ড এসইও র‍্যাঙ্কের জন্য জরুরি।

Categories
ডোমেইন-হোষ্টিং

ডোমেইন সম্পর্কিত গুরুত্বপূর্ণ কিছু তথ্য !

নিজের জানা ব্যক্তিগত কিছু বিষয় আপনাদের সাথে শেয়ার করব। আমরা অনেকেই প্রশ্ন করি চার লেটার এর .net or .org এর ভ্যালু কেমন।। অনেকেই বলেন চার লেটারের যদি ডিকশনারি ওয়ার্ড হয় তাহলে ভ্যালু আছে।। সেটা সবাই বুঝে ডিকশনারি ওয়ার্ডের ভ্যালু আছে। চারটা লেটার এর মধ্যে অনেকগুলোর ট্রামস কন্ডিশন থাকে যেমন, abbreviation, আরেকটা হচ্ছে acronyms. যদি চারটি অক্ষর আপনি অনেকগুলো এভ্রাইভেশন আছে অথবা অ্যাক্রনিমস আছে সেই কোম্পানিগুলোকে টার্গেট করে কিনতে পারেন তাহলে হয়তোবা ভ্যালু পেতে পারেন যদি আপনি ভালো মার্কেটিং করতে পারেন।। কোম্পানি ছাড়াও চারটি অক্ষর দিয়ে অথবা তিনটি অক্ষর দিয়ে যদি অনেক acronyms or abbreviation থাকে এইরকম ডমিন আপনি যদি মনে করেন বিক্রি করতে পারবেন তাহলে কিনতে পারেন।। উল্লেখ্য যে এই সকল ডোমেইন নির্ভর করে অনেকটা আপনার মার্কেটিং পলিসির উপর।

আরেকটা বিষয় অনেক সময় আমরা যখন কারো পোস্টে দেখি অনেক বছরের পুরাতন ডোমেইন বিক্রি হবে, অথবা দেখি [উনিশশত কয়াত্তর সাল থেকে টানা রিনিউ করা ডোমেইন বিক্রি করা হবে] কোন কিছু যাচাই বাছাই না করেই হুটহাট কিনে ফেলি এরকম করা যাবে না।। এ বিষয় নিয়ে নিচে বলতেছি….

আপনার নিজস্ব টাকা যতক্ষণ আপনার হাতে থাকবে ততক্ষণ আপনি ধনবান।।

এখন আরেকটা বিষয় বলি, এই সকল পুরাতন ডোমেইন কোথায় পাওয়া যায়।

[expired domain auction]

কিছু ডোমেইন আছে যে ডোমেইনগুলো ইউজার ইচ্ছাকৃতভাবে অথবা অনিচ্ছাকৃতভাবে রিনিউ করে না।তখন কিছু স্বনামধন্য কোম্পানি (যেমন: GoDaddy, Dynadot, Namesillo, Dropcatch, nameliquidate ) এই ডোমেইনগুলো মেয়াদ থাকা অবস্থায় এক্সপেয়ার্ড অকশন দেয় (expired domain auction)।। দাম অনেকটা রেজিস্টার এর উপর নির্ভর করে আবার অনেকটা পাবলিকলি অকশন থাকে। GoDaddy এর এক্সপার্ট অপশন এ ভাই নাও প্রাইস মিনিমাম 8 ডলার 10 ডলার থাকে। অন্য প্রায় সকল রেজিস্টারে মিনিমাম বিড দিয়ে শুরু হয়। এখান থেকে নিলামের যখন আমরা ডোমেইনগুলো ক্রয় করি তখন সেই ডোমেইন গুলোর মেয়াদ পূর্বের মেয়াদটি চলমান থাকে হঠাৎ হু ইজ সর্বপ্রথম রেজিস্ট্রেশন ডেট বলবৎ থাকে।। এটা বলার কারণ হচ্ছে আপনারা অনেক সময় কমেন্ট করেন ওই সময় আপনি কোথায় ছিলেন আপনার তো জন্মই হয় নাই তাইলে ডোমেইনটি কিভাবে রিনিউ করলেন?

Categories
ডোমেইন-হোষ্টিং

কীভাবে একটি সঠিক ডোমেইন নাম কিনতে পারি।

ডোমেইন হচ্ছে কোন একটা ওয়েবসাইটের নাম। যেমন www.google.com এখানে www হচ্ছে World Wide Web এর পুর্নরূপ এবং ডোমেইন হচ্ছে google.com .আসুন আর একটু সহজ ভাবে বুঝে নেই। মনে করুন আপনি একটি ব্যবসা নতুন করে শুরু করতে চাচ্ছেন। আপনি তাহলে সর্বপ্রথম যে কাজটি করবেন সেটি হচ্ছে এই ব্যবসার জন্য একটি সঠিক এবং সুন্দর নাম নির্বাচন করা। এবং নাম নির্বাচন করা হয়ে গেলে এবার আপনি চাইবেন নামটা যেন আর কেউই ব্যবহার করতে না পারে এবং এজন্য আপনি এই নামে ব্যবসাটিকে ট্রেড লাইসেন্স করে নিলেন। তাহলে এখন এই নামটি আপনি আপনার ব্যবসার জন্য সঠিক ভাবে ব্যবহার করতে পারবেন।এবার এই পুরো বিষয়টিকেই অনলাইনে নিয়ে আসুন। আপনার বিজনেসটি যখন অনলাইনে হবে তখন আপনি একটি নামে ব্যবসাটিকে সকলের কাছে পরিচিত করতে চাইবেন, আর ঐ নামটিই হচ্ছে ডোমেইন (Domain)।

প্রথম বানিজ্যেক ডোমেইন

প্রথম বানিজ্যিক ডোমেন নাম Symbolics.com, ১৫ মার্চ ১৯৮৫ সালে প্রথম বাণিজ্যিক ভাবে ডট কম ডোমেন নাম ক্যাম্ব্রিজের কম্পিউটার ফার্ম সিম্বোলিক্স তাদের ওয়েব সাইট Symbolics.com এ ব্যবহার করে।ডোমেইনের গঠন অনুমোদিত অক্ষর।

দৈর্ঘ্যঃ

ডোমেন নাম দৈর্ঘ্য ৬৩ অক্ষরের মধ্যে হতে হবে।

অনুমোদিত অক্ষরঃ

বর্ণানুক্রমিক অক্ষর, a থেকে z, ছোট হাতের অক্ষর

সংখ্যাসূচক অক্ষর 0 থেকে 9 এর মধ্যে

ড্যাশ (-) ব্যবহার করা যাবে কিন্তু ডোমেন নাম অবশ্যই একটি আলফানিউমেরিক অক্ষর দিয়ে শুরু এবং শেষ হবে। প্রথম এবং শেষ অবস্থানে ড্যাশ অনুমোদিত নয়।সাধারণত ডোমেইনের একের অধিক অংশ থাকে। একটিতে নাম অন্যটি এক্সটেনশন। যেমন www.chayan.info এখানে www হোষ্ট এর নাম, chayan হল ডোমেইন নাম এবং .info হল ডোমেইন এক্সটেনশন। ওয়েবসাইটের ধরণ অনুযায়ী বিভিন্ন ধরনের এক্সটেনশ হয়ে থাকে। যেমনঃ

  • .com সাধারণত কোম্পানি ওয়েবসাইটের জন্য ব্যবহার করা হয়।
  • .net এক বা একাধিক নেটওয়ার্কের জন্য ব্যবহৃত হয়।
  • .org কোন অর্গানাইজেশন/সংগঠন এর ওয়েবসাইটের জন্য ব্যবহার করা হয়।
  • .info ব্যক্তিগত অথবা তথ্যভিক্তিক ওয়েবসাইটের জন্য ব্যবহৃত।
  • .me সাধারণত পোর্টফলিও ওয়েবসাইটের জন্য ব্যবহার করা হয়।

ডোমেইন এর ধরনঃ

ধরনের দিক থেকে বিবেচনা করলে ডোমেইন বিভিন্ন ধরনের হয়ে থাকে। যেমন TLD, gTLD, SLD, ccTLD ইত্যাদি

TLD

Top Level Domain, ইন্টারনেট ডোমেন নামকরণ সিস্টেমের সর্বোচ্চ স্তরের ডোমেন বিভাগ। এ ধরনের ডোমেইন গুলোই সচারচর আমরা বেশি দেখে থাকি। Top Level Domain বোঝার উপায় হলো এর এক্সট্রেইনশন গুলো .com, .net, .org, .me, .info হয়ে থাকে।

SLD

Second Level Domain, ডোমেন নামের একটি অংশ যা ডট(.) এর আগে আসে। যেমন: chayan.com, এখানে SLD হচ্ছে chayan

gTLD

Generic TOP Level Domains, একটি টপ লেভের ডোমেন এর শ্রেণী কিন্তু যেটি কোন দেশের সাথে যুক্ত নয়, যেমন: .com, .net, .org ইত্যাদি।

ccTLD

Country Code Top Level Domain, প্রতিটি দেশের ২টি অক্ষর ডেমেন এর শেষ অংশে যুক্ত হয়ে যে ডোমেইন নামটি গঠন করে তাকেই ccTLD বলে। যেমন বাংলাদেশের .bd পাকিস্তানের .pk আমেরিকার .us ইউনাইটেড কিংডমের .uk ইন্ডিয়ার .in

কিভাবে একটি সঠিক ডোমেইন নাম নির্বাচন করবেন

১. .com এক্সটেইনশনের ডোমেইনকে প্রধান্য দিন

ডোমেইন রেজি: এর জন্য বিভিন্ন ধরনের এক্সটেইনশন আছে। শুরুর দিকে মানুষ .com, .net, .org ডোমেইন নেমের সাথে পরিচিত ছিলো। কিন্তু সময়ের পরিবর্তনের সাথে সাথে বিভিন্ন এক্সটেইনশন এসেছে। এখন তো চাইলে নীশ স্পেসিফাই করেও এক্সটেইনশন নেয়া যায়। যেমন .pizza , .photographt, .travel .ninja ইত্যাদি।তবে একজন অনলাইন মার্কেটার হিসেবে আমি সবসময় সাজেস্ট করি .com ডোমেইন এক্সটেইনশন ব্যবহার করার জন্য। কারন .com এখন পর্যন্ত সবথেকে বহুল ব্যবহৃত ডোমেইন এক্সটেইনশন।এছাড়াও এটা মনে রাখাও সহজ। ধরা যাক একজন মানুষ টোকনোলজি সম্পর্কে খুব বেশি জ্ঞান রাখে না। তার কাছে যদি আপনি বলেন .ninja সে হয়তো কিছুই বুঝতে পারবে না। কিন্তু এই মানুষটাকেই যদি বলেন .com তাহলে সে ঠিক বুঝে নেবে এটা একটা ওয়েবসাইটের নাম।হয়তো ইদানিং আপনারা খেয়াল করে থাকবেন স্মার্টফোনের কীপ্যাডে .com নামে ডিফল্ট কী সেট করা থাকে। অর্থাৎ .com একটি গ্রহনযোগ্য ডোমেইন এক্সটেইনশন।

২. সহজে টাইপ করা যায় এবং সহজ নাম পছন্দ করুন

সবসময় এমন একটি ডোমেইন নেম খুঁজে বের করার চেষ্টা করুন যেটি টাইপ করা সহজ এবং উচ্চারণযোগ্য।

উপরের ডোমেইন নাম গুলোতে খেয়াল করুন। সাইটগুলো খুব সহজেই টাইপ করা যায় এবং প্রত্যেকটা সাইট ই সহজবোধ্য। তাই ডোমেইন নাম নির্বাচনের ক্ষেত্রে সবসময় অপ্রয়োজনীয় শব্দ এড়িয়ে চলুন। এমন কোন নাম পছন্দ করুন যেটা মানে খুব সহজেই বোঝা যায় এবং মনে রাখাও সহজ।

৩. সহজ এবং ছোট নাম নির্বাচন করুন

ডোমেইন যতোটা সম্ভব ছোট রাখার চেষ্টা করুন। আপনার ডোমেনের নাম জটিল এবং লিখতে সমস্যা হয় এ ধরনের শব্দ পরিহার করা উচিত। এক্ষেত্রে ভিজিটরের ভুল টাইপ বা বানান ভুল করার সম্ভবনা থাকে। তাই ছোট ও সহজে মনে রাখা যায় এমন ডোমেইন নেম নির্বাচন করুন। যদিও ছোটো ডোমেইন নেম খুঁজে পাওয়া মোটেই সহজ কাজ না তবে ভাল ফলাফলের জন্য ডোমেইন নেম সংক্ষিপ্ত রাখা জরুরী।ব্যাক্তিগত ভাবে আমি সর্বোচ্চ ৮-১০ অক্ষর ডোমেইন নাম রাখতে পরামর্শ দিব।

৪. কীওয়ার্ড দিয়ে ডোমেন না নেয়া

ওয়বেসাইট তৈরির আগে আমরা সবাই কীওয়ার্ড রিসার্চ করি। এক্ষেত্রে অনেক সময় আমরা মেইন কীওয়ার্ড টি ডোমেইন এর মধ্যে রাখি, যেটিকে বলা হয় EMD (Exact Match Domain). কিন্তু বর্তমানে Google EMD কে অতটা গুরুত্ব দেয়না আগের মত। এমনটি আপনার সাইটের কন্টেন্ট লো কোয়ালিটির হলে আপনাকে Google প্যানাল্টিও দিতে পারে।যেমন ধরুন এখন আপনি একটি ই-কমার্স সাইট করতে যাচ্ছেন। আপনার ব্যবসা শুরু করতে চান এবং আপনার পণ্য Organic Fruits হয়। আপনার ডোমেন নিলেন কীওয়ার্ড রিলেটেড।যেমনঃ organicfruits.com, organicfruitsStore.comতবে এখানে কিছু দ্বিমতও  আছে। কারন আমরা এখনও দেখি কিছু কিছু ক্ষেত্রে EMD কে প্রাধান্য দেয়া হয়, যদি আপনার কন্টেন্ট উন্নত মানের হয়।

৫. অবাঞ্চিত ক্যারেক্টার, হাইপেন ব্যবহার না করা

ডোমেইন নামের মধ্যে কোনো অবাঞ্চিত ক্যারেক্টার কিংবা সিম্বল ব্যবহার করা উচিত নয়। যাতে করে ডোমেইন নেম টাইপ করার সময় ভিজিটরের কোনো ধরনের প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে।উদাহরন স্বরুপ বলা যায় প্রথম আলোর কথা। আপনি একজন কে যদি বলেন প্রথম আলোর ওয়েবসাইট ভিজিট করার জন্য। যে কিনা প্রথম আলো সম্পর্কে কোনো ধারনা রাখে না সে সরাসরি prothomalo.com ভিজিট করবে এতে সে একটি ভুল এবং আন অথরাইজ ওয়েবসাইটে চলে যাবে । কারন আপনি তাকে বলেননি প্রথম আলোর অফিসিয়াল ওয়েবসাইট টি prothomalo.com নয় prothom-alo.com। তাই ডোমেইনে অপ্রয়োজনীয় ক্যারেক্টার হাইপেন কিংবা সংখ্যা ব্যবহার না করাই ভালো।

৬. ডোমেইন নিয়ে বিস্তারিত জেনে নিন

ডোমেইন নাম রেজি: করার আগেই নিশ্চিত হয়ে নিন যে আপনার নির্বাচিত নামটি ট্রেডমার্ক, কপিরাইটযুক্ত বা অন্য কোম্পানী দ্বারা ব্যবহৃত হচ্ছে না। কারন তা না হলে আপনাকে বড় ধরনের আইনি জটিলতার সম্মুখ্যীন হতে পারে।যেমন আপনি আপনার ডোমেইন নেমে Google, Facebook এই ধরনের ওয়ার্ড ব্যবহার করতে পারবেন না। কারন এগুলো ট্রেডমার্ক ওয়েবসাইট এবং এদের নাম কপিরাইট করা। তাই ডোমেইন নেম রেজি: করার আগেই আগেই এই ব্যাপার গুলো চেক করে নিন।ডোমেন কোন কোম্পানির কাছ থেকে কিনলে ভালো হবে ?এই ধরনের প্রশ্ন প্রায়ই আমি পেয়ে থাকি , আপনারা godaddy , namecheap , Bluehost , HostGator এই সব কোম্পানি গুলোর থেকে মাস্টারকার্ড দিয়ে কিনতে পারেন।

তবে এসব কোম্পানির কাছ থেকে আমাদের হোস্টিং ডোমেইন কিনতে মেইন যে, সমস্যাটি হয়ে থাকে তা হল , ইন্টারনেশনাল ভাবে ডলারে পেমেন্ট করা।

বাংলাদেশের অনেক কোম্পানী লোকাল কারেন্সিতে ডোমেইন এবং হোস্টিং কেনার সুযোগ দেয়। 

Categories
ডোমেইন-হোষ্টিং

ডোমেইন রিসার্চ সম্পর্কিত কিছু তথ্য!

আপনি যদি ভাল মানের ডোমেইন রিসার্চ করতে পারেন তবে আপনি প্রচুর পরিমাণে মানি মেক করতে পারবেন।আপনি ডোমেইন রিসার্চ করার জন্য কিছু ডোমেইন কিনে রাখতে পারেন এবং একটি নিদিষ্ট সময় পর ডোমেইনগুলি বিভিন্ন মার্কেটপ্লেসে বিক্রি করে দিয়ে ভাল মানি মেক করতে পারেন। ফাইবার, ফ্রিল্যান্স মার্কেটপ্লেসে ডোমেইন রিসার্চ করে দেওয়ার জন্য প্রচুর পরিমাণে কাজ পাওয়া যায় আপনি যদি কোন বিজনেস কোন ওয়েবসাইটের নাম সিলেক্ট করা এগুলো আপনার মাথায় ভালো ধারনা থাকে তাহলে আপনি বিভিন্ন ফ্রীল্যান্স মার্কেটপ্লেসে ভাল কাজ পেয়ে যেতে পারেন।

তাছাড়া ডোমেইন রিসার্চ করে ভালমানের ডোমেইন কিনে রেখে তা বিভিন্ন ওয়েবসাইটে অনেক দামে সেল করতে পারবেন, এছাড়াও সেগুলো বিভিন্ন ক্লায়েন্টের কাছে বিক্রি করে টাকা আয় করতে পারেন।অবশ্যই ডোমেইন রিসার্চ করার জন্য আপনার মাথায় কোন একটি বিজনেস আইডিয়া কাজ করলে আপনি ভালমানের ডোমেইন কিনতে পারবেন এর জন্য আপনার ভাল জ্ঞান থাকতে হবে ।

এই কাজটি যদি আপনি করতে পারেন তাহলে আপনি অনলাইনে প্রচুর পরিমানে মানি মেক করতে পারবেন এবং ধৈর্য ধরে বিভিন্ন মার্কেটপ্লেসে বিভিন্ন কোম্পানির সাথে কাজ করতে থাকেন অবশ্য এক না একদিন সফল হতে পারবেন।

এই সেক্টরে সফল হওয়ার জন্য আপনাকে প্রচুর পরিমাণে মাথার ব্রেন খরচ করতে হবে এবং কিছু টেকনিক্যাল ব্রেন থাকে তাহলে আপনি খুব সহজে এই ক্যাটাগরিতে ইনভেস্ট করে সফল হতে পারবেন। তাহলে আর দেরি না করে আজিই ডোমেইন রিসার্চ শুরু করতে পারেন।